শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:৫৮ অপরাহ্ন

তিস্তার পানি এখন বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই, ৩৫২ কিলোমিটার চরাঞ্চল এবং নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

তিস্তার পানি এখন বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই, ৩৫২ কিলোমিটার চরাঞ্চল এবং নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

নিউজ ডেস্ক :: তিস্তার পানি এখন বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই ৩৫২ কিলোমিটার চরাঞ্চল এবং নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

তিস্তার পানি এখন বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই। রোববার (১২ জুন) সকাল ছয়টায় লালমনিরহাটের তিস্তা ব্যারেজ পয়েন্টে তিস্তার পানি ছিল বিপদসীমার মাত্র ১৫ সেন্টিমিটার নিচে। যেকোনো মুহূর্তে তা বিপদসীমা ছারিয়ে যাওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

 

রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান হাবীব জানিয়েছেন, বৃষ্টিপাত এবং উজানের ঢলের কারণে তিস্তায় গত বুধবার রাত ৯টা থেকে পানি বাড়তে শুরু করেছে। ওই সময় থেকে ৫১ দশমিক ৮৩ থেকে বেড়ে রোববার সকাল ছয়টায় হয়েছে ৫২ দশমিক ৪৫ সেন্টিমিটার। যা বিপদসীমার ৫২ দশমিক ৬০ এর মাত্র ১৫ সেন্টিমিটার নিচে। এ কারণে তিস্তা নদীর পানি সমতল বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে এবং কোনো কোনো স্থানে যেকোনো মুহূর্তে বিপদসীমা অতিক্রম করবে বলেও আশঙ্কা করছেন তিনি।

 

 

এদিকে রংপুর আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে গত ৪ জুন সকাল ছয়টা থেকে ১২ জুন সকাল ছয়টা পর্যন্ত ১৬৮ দশমিক ৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে এই অঞ্চলে। এর মধ্যে রোববার সকাল ছয়টার আগের ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ৪৮ মিলিমিটার। এখনও বৃষ্টি অব্যাহত আছে।

পানি বৃদ্ধি হওয়ায় এই নীলফামারীর ডিমলার ছাতনা এলাকা থেকে জলঢাকা, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম হাতীবান্ধা, কালিগঞ্জ, আদিতমারি, সদর, রংপুরের গঙ্গাচড়া, কাউনিয়া, পীরগাছা, কুড়িগ্রামের রাজারহাট, উলিপুর, চিলমারি, এবং গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের হরিপুরের ব্রহ্মপুত্র নদ পর্যন্ত অববাহিকার ৩৫২ কিলোমিটার এলাকার চরাঞ্চল এবং নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে এই সব এলাকার উঠতি বাদাম, আমনের চারা, পাট, সবজিসহ বিভিন্ন ফসল প্লাবিত হয়েছে। বড় বন্যার আশঙ্কায় আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে তিস্তা পাড়ের মানুষ।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 ajkercrimetimes.com

Design and Developed By Sarjan Faraby