মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:৫১ পূর্বাহ্ন

পটুয়াখালীতে আগুনে পুড়িয়ে স্ত্রীকে হত্যা, মাদকাসক্ত স্বামী আটক

পটুয়াখালীতে আগুনে পুড়িয়ে স্ত্রীকে হত্যা, মাদকাসক্ত স্বামী আটক

পটুয়াখালীতে তুচ্ছ ঘটনায় মোসাঃ কনা আক্তার(২৪) নামে দুই শিশু সন্তানের জননীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। স্ত্রী হত্যার অভিযোগে পুলিশ মাদকাসক্ত স্বামী আবুল বাশার(৩০)কে আটক করে জেলে পাঠিয়েছে। এঘটনার বিচারের দাবীতে রোববার পটুয়াখালী প্রেসক্লাব চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে এলাকাবাসী।

পটুয়াখালী সদর উপজেলার মধ্য টেংরাখালী গ্রামের এঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে শ্বশুর ইসমাইল মৃধা পলাতক রয়েছে। সদর উপজেলার মাদারবুনিয়া ইউনিয়নের হাঝিখালী গ্রামে দরিদ্র প্রতিবন্ধী সিরাজ মৃধার মেয়ে এই কনা।

নিহত ওই গৃহবধুর পিতা সিরাজ মৃধা ও তার পরিবারের অভিযোগ-গত সোমবার (২ মার্চ)পরিবারের সকলে মিলে দুপুরের খাবার খেতে বসে। এসময় ডাল রান্না খারাপ হওয়ার অজুহাত তুলে শ্বশুর ইসমাইল মৃধা পুত্রবধু কনাকে বকাঝকা করে। এসময় মাদকাসক্ত স্বামী বাশার তার পিতার সাথে মিলে স্ত্রীকে মারধর শুরু করে। একপর্যায় স্বামী ক্ষিপ্ত হয়ে কনার হাত-পা বেধে মটরসাইকেলে ব্যবহৃত ঘরে মজুদ রাখা পেট্রোল কনার শরীরে ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এতে করা অগ্নী দগ্ধ হয়ে বাড়ীর আঙিনার পাশের একটি ছোট জলাশয়ে নেমে ডাকচিৎকার শুরু করে। কনার ডাকচিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে কনাকে উদ্ধার করে। ততক্ষনে কনার শরীরের ৫০ ভাগ পুড়ে যায় বলে প্রতিবেশিরা জানায়। উদ্ধারের পর প্রতিবেশিরা কনাকে পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

চিকিৎসকরা কনার অবস্থার অবনতি দেখে বরিশাল প্রেরন করেন। ঘটনার দুই দিনের মাথায় বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কনাকে ঢাকা মেডিকেলে প্রেরন করেন। ঢাকা মেডিকেলে ৫ দিন চিকিৎসার পর শুক্রবার(০৬ মার্চ) বিকালে মারা যায়। খবর পেয়ে পটুয়াখালী সদর থানা পুলিশের একটি দল ঢাকা মেডিকেলের সামনে থেকে কনার স্বামী বাশারকে আটক করে এবং কনার মৃতদেহ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে।

পটুয়াখালী সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান জানায়, এ ঘটনায় রোববার সদর থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। স্বামী বাশারকে আটক করা হয়েছে। এঘটনায় মামলা হয়েছে,বাকি আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধিন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 ajkercrimetimes.com

Design and Developed By Sarjan Faraby