শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:২৬ অপরাহ্ন

পাথরঘাটায় ৪ দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ দুই ভাইয়ের

পাথরঘাটায় ৪ দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ দুই ভাইয়ের

ও বাবা… ও মা…। মোর বুকটা ফাইট্টা যায়, মোর পোলা দুইডা কই আছে। সবাই আয়-যায় মোর বাবারা আয়না। ঘরের খাটে মুরছা যায় আর বুকে থাপ্পর মেরে আকুতি করছে নিখোঁজ জেলে ইউসুফ বেপারীর পারুল বেগম ও বাইজিদ বেপারীর মা পারভীন বেগম।

নিখোঁজ জেলেরা হলেন, পাথরঘাটা উপজেলার সদর ইউনিয়নের পদ্মা গ্রামের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুর রহিম বেপারির ছেলে ইউসুফ বেপারি (২৩) ও আমিন বেপারির ছেলে বাইজিদ বেপারী (১৭)।

এর আগে বুধবার (৪ জানুয়ারি) রাত দেড়টার দিকে পাথরঘাটা থেকে ৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিম সুন্দরবনের পক্ষিদিয়া লাচি এলাকায় নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটে। চারদিনেও দুই ভাইয়ের খোজ না পাওয়ায় বাড়িতে চলছে আহাজারি।

রোববার (৮ জানুয়ারি) সরেজমিন নিখোঁজ জেলেদের বাড়ি গিয়ে দেখা যায়, উঠান ভরা মানুষ, আত্মীয় স্বজন, প্রতিবেশিরা আসছেন। অনেকে বাবা-মাকে শান্তনা দিচ্ছেন।

ঘর থেকে ইউসুফের মা পারুল ও বাইজিদের মা পারভীন সামনের দরজায় আসছেন আর মুরছা যাচ্ছেন। এই বুঝি বুকের ধন আসছে…। আগতদের দেখেই কান্না জড়িত কন্ঠে বলছেন- সবাই আয় আর যায়, মোগো বাবারা আয়না এহনো। মোর বাবায় (বাইজিদ) ফোনে কইছেলে- নৌকা ডুবছে, ককশিড নিয়া ভাইসা আছি, মোগো তাড়াতাড়ি উদ্ধার করেন। এহনো কি আয় নায়।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) বাড়ি থেকে রাতের খাবার খেয়ে চারদিনের বাজার সদাই নিয়ে ইউসুফ ও বায়জিদ সুন্দরবন সংলগ্ন বলেশ্বর নদে মাছ ধরার জন্য ছোট একটি ট্রলার নিয়ে রওনা দেয়।

বাইজিদের মা পারভীন জানান, বুধবার রাত দেড়টার দিকে তার ছেলে বায়জিদ ফোন করে জানায় তাদের ট্রলার ডুবে গেছে। তারা দুই জন একটি ককশিটের উপর ভেসে আছে। তাদের তারাতারি উদ্ধার করতে সাহায্য চায়। এরপর থেকে তাদের ব্যাবহৃত মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

ইউসুফের ফুফাতো ভাই মো. বেল্লাল জানান, ট্রলার ডুবির খবর পেয়ে় রাতেই এলাকার লোকজন উদ্ধারের জন্য বের হয়। শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) বিকেলে ডুবে যাওয়া নৌকা, জাল, দড়ি ও ককশিট ভাসমান অবস্থায় পেলেও দুই চাচাতো ভাইয়ের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের পাঁচটা ট্রলার বিভিন্ন পয়েন্টে অনুসন্ধান অব্যাহত রয়েছে। ইউসুফের স্ত্রী সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা। বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, নিখোঁজ জেলেরা সম্পর্কে চাচাতো ভাই। তাদের উদ্ধারের জন্য ট্রলার নদীতে তল্লাশি করছে। কিন্তু শনিবার রাত পর্যন্ত কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

কোষ্টগার্ড দক্ষিণ জোনের পাথরঘাটা স্টেশন কমান্ডার লেফটেনেন্ট শাফায়েত আবরার বলেন, কোস্টগার্ডের অনুসন্ধান অব্যাহত রয়েছে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 ajkercrimetimes.com

Design and Developed By Sarjan Faraby