শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:৫২ অপরাহ্ন

ফেসবুকে প্রেম! দুই সন্তানের জননীর সাথে নবম শ্রেণির ছাত্রের বিয়ে, নবদম্পতিকে দেখতে উৎসুক জনতার  ভিড়

ফেসবুকে প্রেম! দুই সন্তানের জননীর সাথে নবম শ্রেণির ছাত্রের বিয়ে, নবদম্পতিকে দেখতে উৎসুক জনতার  ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক   :: ফেসবুকে প্রেম! দুই সন্তানের জননীর সাথে নবম শ্রেণির ছাত্রের বিয়ে, নবদম্পতিকে দেখতে উৎসুক জনতার  ভিড়।

 

গাইবান্ধার সাদল্লাপুরে নবম শ্রেনীর এক স্কুলছাত্রকে বিয়ে করে রীতিমতো হইচই ফেলে দিয়েছেন মোসুমী আক্তার নামে দুই সন্তানের জননী। রোববার (২৪ জুলাই) উপজেলার ধাপেরহাট ইউনিয়নের হাসানপাড়া গ্রামে ওই নবদম্পতিকে দেখার জন্য উৎসুক লোকজন বাড়িতে ভিড় করে।

স্থানীয়রা জানায়, স্বামীর সাথে মনোমালিন্য না হওয়ায় বেশ কিছুদিন ধরে বাবা মহিরউদ্দিনের বাড়িতে অবস্থান করছিলেন দুই সন্তানের জননী মৌসুমী আক্তার। এর মধ্যে ফেসবুকে রংপুরের পীরগাছা উপজেলার পাওটানা হাট গিরগিরি গ্রামের ফারুক মন্ডলের ছেলে নবম শ্রেণির ছাত্র সোহেল (১৫) সঙ্গে পরিচয় হয় তার। নিজেকে অবিবাহিত দাবি করে সোহেলের সাথে প্রেম করে মৌসুমী আক্তার।

 

এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) সোহেল প্রেমিকা মোসুমী আক্তারের সাথে দেখা করার জন্য সাদুল্লাপুরে চলে আসে। দেখাদেখির পর মৌসুমী তার প্রেমিক সোহেলকে নিয়ে স্থানীয় এক কাজীর বাড়িতে গিয়ে পূর্বের স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে নতুন প্রেমিক সোহেলের সঙ্গে বিয়ে রেজিষ্ট্রি করে। পরে সন্ধ্যায় তাকে বাড়িতে নিয়ে আসলে সোহেল জানতে পারে মোসুমী আক্তারের ২টি সন্তান আছে। প্রতারণা বুঝতে পেরে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্থানীয়রা সোহেলকে আটকে রেখে সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে তাদের বিয়ে পড়িয়ে দেয়।

 

ধাপেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মিন্টু জানান, অসুস্থতার কারণে আমি ঢাকায় অবস্থান করছি তবে লোকমুখে বিয়ের বিষয়টি শুনেছি। তবে সালিশ বৈঠকে কোনো ইউপি সদস্যকে ডাকা হয়নি।

 

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 ajkercrimetimes.com

Design and Developed By Sarjan Faraby