বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন :
আপনার প্রতিষ্ঠানের বিশ্বব্যাপী প্রচারের জন্য বিজ্ঞাপন দিন
সংবাদ শিরোনাম :
নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে অস্ত্রসহ রয়েল গ্রুপের সেকেন্ড ইন কমান্ড আটক বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ডাক দিয়ে যাইর উদ্দোগে সিবিও নেতাদের নিয়ে আন্তঃজেলা শিক্ষা সফর বরিশালে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস পালন গৃহবধূকে ধর্ষণের পর ‘ভিডিও ধারণ’ চেয়ারম্যান, বাদল আটক বাবার চাকরিটা পেতে বাবাকেই খুন করল ৩৫ বছরের, বেকার ছেলে আরও শক্তিশালী আকার ধারণ করেছে ঘূর্ণিঝড় ‘নিভার’ ১৪৪ ধারা জারি এবার পরীক্ষা নয়, লটারির মাধ্যমে ‘স্কুলে ভর্তি’ শিক্ষামন্ত্রী ড.দীপু মনি ঘরে বসেই তৈরি করুন ‘পান্তোয়া পিঠা’ রেসিপি জেনে নেয়া যাক বরিশালে ‘থানার পাশে সহ বেশ কয়েকটি সড়কে Sorry’ লেখা নিয়ে রহস্য বরিশালের পিরোজপুরে গণতান্ত্রিক সুশাসনে জনসম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহনে রিফ্রেশার্স প্রশিক্ষন সভা অনুষ্ঠিত আগৈলঝাড়ায় নো মাস্ক ,নো সার্ভিস প্রচারণায় মাস্ক ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করতে ৬ জনতে জরিমানা পটুয়াখালীতে জমি বিক্রি করে টাকা না দেয়ায় বাবাকে হত্যা, ছেলে ইমরান আটক ঢাকাকে ২ রানে হারাল রাজশাহী ‘সন্ধায় খেলবে’ ফরচুন বরিশাল-জেমকন খুলনা বানারীপাড়ায় জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ পালন দেশে করোনা ভাইরাসের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী বরিশালে হৃদরোগ ঝুঁকি এবং করনীয় বিষয়ক বিভাগীয় সেমিনার অনুষ্ঠিত বরিশালে শিশুদের মাঝে খাদ্য বিতরণ বরিশালে মাস্ক ব্যবহার না করায় ৬২ জনকে ১১,২০০ টাকা জরিমানা বরিশালে স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির মাঝে ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের অনুদানের চেক বিতরণ বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের উদ্বোধন
ময়মনসিংহে হাজার ছাড়ালো করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত

ময়মনসিংহে হাজার ছাড়ালো করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত

virus 3d illustration

ময়মনসিংহ বিভাগে হু হু করে বেড়েই চলছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। মরণব্যাধি কোভিড-১৯-এ আক্রান্তের সংখ্যা শনিবার হাজার ছাড়িয়েছে। গত শনিবার করোনাভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন আরো ৪৪ জন। এই বৃদ্ধির জেরে করোনাভাইরাসে ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, শেরপুর এবং জামালপুরে মোট আক্রান্ত হলেন ১ হাজার ২৭ জন।

এর মধ্যে ৯৬ জন চিকিৎসক, ৯৪ জন নার্স ও স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারি রয়েছেন ১৮১ জন।

গতকাল (রবিবার) দুপুরে বাংলাদেশ প্রতিদিনের কাছে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক আবুল কাসেম। তিনি জানান, শনিবার বিভাগের ৪১৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৪ জনের দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে ১৬ জন ময়মনসিংহ জেলা এবং ২৮ জন জামালপুর জেলার বাসিন্দা।

স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয় সূত্র জানায়, বিভাগে করোনা শনাক্ত ১ হাজার ২৭ জনের মধ্যে ময়মনসিংহ জেলার ৪৮৬ জন, জামালপুরের ২৩৬ জন, নেত্রকোনার ২২১ জন ও শেরপুরের ৮৪ জন।
তবে করোনাভাইরাসে যেমন মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, তেমন সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যাও কম নয়। প্রতিক‚ল পরিস্থিতিতে এটাই যেন আশার আলো। কোভিডে আক্রান্ত হবার পর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪১৩ জন।

সূত্রে  জানা গেছে, আক্রান্তদের মধ্যে ৫৮৮ চিকিৎসাধীন রয়েছেন এবং ১৩  জনকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে।

 

সূত্রে আরো জানায়, আক্রান্তদের মধ্যে ৫৮৮ চিকিৎসাধীন রয়েছেন এবং ১৩  জনকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে। সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪১৩ জন। অপরদিকে করোনায় থাবায় ময়মনসিংহে ৬, নেত্রকোনায় ২, জামালপুরে চার এবং শেরপুরে একজন মারা গেছেন। পহেলা এপ্রিল থেকে এখন পর্যন্ত ১৫ হাজার ২১৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

তবে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যার বিবেচনায় সবার উপরে আছে ময়মনসিংহ জেলা। আর ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এখন করোনা সংক্রমণের সবচেয়ে বড় হটস্পট বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। একের পর এক চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের আক্রান্তের ফলে চিকিৎসা সেবাও মুখ থুবড়ে পড়ছে। ২০৬ জন চিকিৎসকের মধ্যে ইতিমধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৬ জন। এছাড়ও ৫৮ জন নার্স এবং আরো ৫৯ জন অন্যান্য স্টাফ আক্রান্ত হয়েছেন। আর ১৩টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১১ জন চিকিৎসক, ১৪ জন নার্স ও ৩৩ জন স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন।

অপরদিকে নেত্রকোনায় ৮ জন চিকিৎসকসহ ৩৯ জন, জামালপুরে ২৪ চিকিৎসকসহ ৮১ জন ও শেরপুরে ৭ চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্য বিভাগের ৩০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এমন পরিষংখ্যানে বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) ময়মনসিংহ শাখার সভাপতি ডা. মতিউর রহমান ভুঁইয়া উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ‘ময়মনসিংহ মেডিকেলের নতুন ভবনটি দ্রুতই করোনা ডেডিকেটেড উপযোগী করে গড়ে তোলা প্রয়োজন। এতে করে চিকিৎসক এবং চিকিৎসা ব্যবস্থার সাথে সংশ্লিষ্টরা সংক্রমণের হাত থেকে যেমন রক্ষা পাবে তেমনি সাধারণ মানুষও এর সুফল ভোগ করতে পারবে। ’

অপরদিকে ময়মনসিংহের সিভিল সার্জন ডা. এ বি এম মশিউল জানিয়েছেন, ‘অন্য তিন জেলার চেয়ে ময়মনসিংহ জেলার মানুষ অনেক বেশি। সে হিসাবে আক্রান্তের সংখ্যাও বেশি। নিজেকে সতর্ক রাখার চেয়ে এখন বিকল্প কিছুই নেই। ’

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ময়মনসিংহ অঞ্চলে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়লেও সাধারণ মানুষের মাঝে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোন লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না। সারাদিনই সড়ক গুলোতে থাকছে মানুষের ভীড়, নেই সামাজিক দূরত্ব। দেদারছে চলছে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক, রিকশা। এমনকি সিএনজি চালিত অটোরিকশাও যাচ্ছে এক জেলা থেকে অন্য জেলা-উপজেলা পর্যন্ত।

সূত্রঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





আমাদের ভিজিটর

  • 19,902 জন ভিজিট করেছেন
© All rights reserved © 2019 ajkercrimetimes.com
Design By Rana