ঢাকামঙ্গলবার , ১২ ডিসেম্বর ২০২৩

বরিশাল নগরীতে ৬০ হাজার শিশু পাবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল

ক্রাইম টাইমস রিপোর্ট
ডিসেম্বর ১২, ২০২৩ ৪:৪১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সংবাদটি শেয়ার করুন....

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বরিশাল নগরীতে ৬০ হাজার শিশু পাবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল।

সারা দেশের ন্যায় বরিশালেও আজ মঙ্গলবার জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উদ্ভোদন হয়েছে। সকাল ১০ টায় বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত নগরীর কিশোর মজলিস পাঠাগার চত্বর আলেকান্দায় ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করেন। ২২০ টি কেন্দ্রের মাধ্যমে শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। তাছাড়া ভ্রাম্যমান জনগোষ্ঠির জন্য বাসষ্টান্ড, লঞ্চঘাট এবং ফেরিঘাটে কেন্দ্র থাকবে।

সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ, আরবান প্রাইমারী হেলথ কেয়ার সার্ভিসে ডেলিভারী প্রকল্প, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান এফপিএবি, সূর্যের হাসি ক্লিনিক, ব্র্যাক, চন্দ্র দ্বীপ, উদয়ন পাঠাগার, সিডিসি, গার্লস গাইড, ওআরডিপি, সদর হাসপাতাল, শের-ই-বাংল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ওডিপি, মেরি স্টোপস ক্লিনিক, সেন্ট এ্যানেস মেডিকেল সেন্টার এবং স্কুলের শিক্ষক সহ মোট ১৬ টি প্রতিষ্ঠানের ৫০০ জন কর্মী উক্ত কার্যক্রমে অংশগ্রহন করেন।

প্রতিটি কেন্দ্র সকাল ৮ ঘটিকা থেকে বিকেল ৪ ঘটিকা পর্যন্ত খোলা থাকবে। জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন এ বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৬ মাস থেকে ১১ মাস বয়সের এবং ১২ মাস থেকে থেকে ৫৯ মাস বয়সের মোট ৬০ হাজার শিশুকে ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। এই ক্যাম্পেইনে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বাড়ী-বাড়ী পরিদর্শনের মাধ্যমে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে না।

ভিটামিন এ ক্যাপসুল শিশুর জন্য সম্পূর্ন নিরাপদ। তবে ভরা পেটে খাওয়া ভাল। যদি কোন শিশু গত ৪ মাসের মধ্যে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খেয়ে থাকে সেই শিশুকে ক্যাম্পেইনে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না। প্রতিটি কেন্দ্রে ২ জন করে কর্মী থাকবেন। ক্যাম্পেইন কার্যক্রম অনলাইনে সুপারভিশন হবে। বক্তরা বলেন ভিটামিন এ শিশুর স্বাভাবিক দৃষ্টি শক্তি বজায় রাখে ফলে শিশু রাতকানা রোগ থেকে রক্ষা পায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। শিশুর মৃত্যুর ঝুঁকি কমায়।

উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার সওকত আলি ও বিসিসির নির্বাহী কর্মকর্তা, কাউন্সিলরগণ।