ঢাকাবুধবার , ১৫ মে ২০২৪

বরিশাল নগরীতে এক গৃহবধুর বাড়িতে রাতের আধারে হামলার মামলায়  সিদ্দিকী ও মরিয়মের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

ক্রাইম টাইমস রিপোর্ট
মে ১৫, ২০২৪ ৫:২৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সংবাদটি শেয়ার করুন....

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বরিশাল নগরীর চাদঁমারী মাদ্রাসা সড়কে গৃহবধুর বাড়িতে রাতের আধারে হামলা, ভাংচুর ও চুরি মামলায় আসামী সৈয়দ মোহাম্মাদ আলী সিদ্দিকী ও মরিয়ম বেগমের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

নগরীর চাদঁমারী মাদ্রাসা সড়কের বিআইপি পিছনের গেট সংলগ্ন এলাকায় এক গৃহবধুর বাড়িতে রাতের আধারে হামলা, ভাংচুর ও চুরি মামলায় বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আদালতের বিচারক মো: আল ফয়সাল ২ আসামীর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেছেন। গতকাল উভয়পক্ষের শুনানী শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে তিনি চার্জ গঠন করেন। মামলার ১ নম্বর আসামী মৃত সৈয়দ আবদুল বারী এর ছেলে সৈয়দ মোহাম্মাদ আলী সিদ্দিকী মালয়শিয়া প্রবাসী থাকায় ও আদালতে হাজির না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন বিচারক।
আদালতে মামলা সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিনের জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ২০২২ সালের ২২ সেপ্টেম্বর রাত আনুমানিক ১০ টায় বরিশাল নগরীর চাদঁমারী মাদ্রাসা সড়কের বিআইপি পিছনের গেট সংলগ্ন এলাকায় গৃহবধু মুকুল বেগমের বসতবাড়ি শেখ শামীম ম্যানশনে রাতের আধারে হামলা, ভাংচুর ও চুরি করে আসামী ১৪ নং ওয়ার্ডের কালু শাহ সড়কের মৃত সৈয়দ আবদুল বারী এর ছেলে সৈয়দ মোহাম্মাদ আলী সিদ্দিকী (৫০) ও তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম (৪০) সহ অঞ্জাত ১০/১২ জন। এ ঘটনায় ওই বাড়ির মালিক মুকুল বেগম কোতয়ালী মডেল থানায় ১৪ নং ওয়ার্ডের কালু শাহ সড়কের মৃত সৈয়দ আবদুল বারী এর ছেলে সৈয়দ মোহাম্মাদ আলী সিদ্দিকী ও তার স্ত্রী মরিয়ম বেগমসহ অঞ্জাত ১০/১২ জনকে সন্ত্রাসীকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং জিআর ৮৪৭/২০২২। এরপর মামলা তদন্ত করে তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে তদন্ত রিপোর্ট জমা দেন।আদালত সকল বিষয় বিবেচনা করে ও ঘটনার সত্যতা পেয়ে গতকাল বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আদালতের বিচারক মো: আল ফয়সাল ২ আসামীর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন। একইসাথে মামলার ১ নং আসামী মালয়শিয়া প্রবাসী পলাতক থাকায় ও আদালতে হাজির না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন বিচারক। এদিকে, মামলার আসামীরা প্রভাবশালী হওয়ায় মামলার বাদী মুকুল বেগম, স্বাক্ষী শেখ শামীম, শেখ নজরুল ইসলাম,শেখ অলি, মোশারেফ হোসেন সিকদার, তানজিল সিকদারসহ অন্যান্য স্বাক্ষীদের গুলি করে হত্যা ও কুপিয়ে জখমসহ নানা রকম হুমকি ধামকি দিচ্ছেন। এ ঘটনায় বাদী র‌্যাব ও পুলিশের হস্তক্ষেপ ও সহযোগীতা কামনা করেছেন।